সর্বশেষ :

লাল শাপলায় রঙিন বিকিবিলের ক্যানভাস

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :

মেঘালয় পাহাড়ের অপরূপ নীলাভ সৌন্দর্যকে আরও রোম্যান্টিক ও কাব্যময় করে তুলেছে বিকিবিলের লাল শাপলা। সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী উত্তর বড়দল ইউনিয়নের এই বিল লাল শাপলার সৌন্দর্যে মোহনীয় রূপ ধারন করেছে। প্রায় ১৫ একর জায়গা জুড়ে বিস্তৃত এই বিলটিকে গত ১২ অক্টোবর পর্যটন এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে। প্রকৃতির নিজ হাতে গড়া অনিন্দ্যসুন্দর লালের এই সমারোহ দেখতে প্রতিদিন এখানে বেড়াতে আসছেন অসংখ্য পর্যটক। বিকিবিল দেখতে আসা এ সব পর্যটকরা বাড়তি পাওনা হিসেবে ভ্রমণ করছেন প্রকৃতির লীলাভূমি টাঙ্গুয়ার হাওর, শিমুলবাগান, বারেকের টিলা, নীলাদ্রী পাহাড়ের কোলঘেঁষা শহীদ সিরাজ লেক।

পর্যটকেরা জানান, সবুজ ক্যানভাসের মাঝখানে লাল শাপলার বিশাল সমোরোহ হৃদয় কেড়ে নেয়। প্রকৃতির নিজ হাতে আঁকা রঙিন এই ক্যাভাস স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ করার জন্যে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন তারা। শুভ্র সকাল, ঝলমলে দুপুর কিংবা পড়ন্ত বিকাল- এক এক সময় এক এক রূপ ধারণ করে লাল শাপলায় আচ্ছাদিত বিকিবিল। অপরূপ সৌন্দর্যের এই জলাশয়টিকে যথাযথ সংরক্ষণের ব্যবস্থা করার দাবি পর্যটকদের।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের কাশতাল গ্রামের সামনে বাদাঘাট ও কাউকান্দি বালিয়াঘাট নতুন বাজার সড়কের মাঝামাঝি স্থানে বিকিবিলের অবস্থান। কাশতাল, বরোখাড়া ও আমবাড়ি গ্রাম তিনদিক থেকে ঘিরে রেখেছে এই বিলটিকে। বারো মাসই কম-বেশি শাপলার দেখা মিলে এই বিলে। তবে অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে ফুলের বিস্তৃতি বেড়ে যায়।

বড়দল (উত্তর) ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কাসেম বলেন, এ বিকিবিল হলহলিয়া ও দিঘলবাঁক মৌজার প্রায় ১৪ দশমিক ৯৫ একর জায়গা জুড়ে অবস্থিত। ১০-১২ বছর আগে এ বিলে সামান্য কিছু ফুল ছিল। ৩-৪ বছর ধরে পুরো হাওর লাল শাপলায় ছেয়ে যাচ্ছে।

সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ বলেন, বিকিবিলকে সৌন্দর্যপিপাসু মানুষের দেখার সুযোগ করে দিতে এটিকে পর্যটন এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বিলটির উন্নয়নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *