সর্বশেষ :

সম্পূর্ণ‘ সোনা দ্বারা নির্মি ত হোটেল ডলস হ্যানয় গোল্ডেন লেক।

খোলে যাচ্ছে বিশ্বের প্রথম সোনার পাতে মোড়ানো হোটেলের দরজা

ট্রাভেলার নিউজ ডেস্ক :

পর্যটন  শিল্পের এক অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হচ্ছে আবাসিক হোটেল। ভাল মানের একটি আবাসিক হোটেল একটি দেশের পর্যটন শিল্পের চেহারা আমূল পাল্টে দিতে সক্ষম। যেমন পৃথিবীর সর্বোচ্চ বুর্জ খলিফা হোটেল। পুরো দুবাইয়ের পর্যটন ব্যবসার চেহারাটাই পাল্টে দিয়েছে এই তারকা মানের হোটেলটি। সম্প্রতি এমনই এক আকর্ষণীয় হোটেলের দরজা উন্মোচন করতে যাচ্ছে এশিয়ার আরেক দেশ ভিয়েতনাম।

‘ডলস হ্যানয় গোল্ডেন লেক’ নামের নতুন এই হোটেলটি আপাদমস্তক সোনার পাত দিয়ে মুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। হোটেলের টয়লেট সিট থেকে শুরু করে লবি, ইনফিনিটি পুল, রুম এমনকি বাথরুমের শাওয়ারের মাথাটিও সোনা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো হোটেলে কোনো অতিথি যদি কফি খেতে চান তবে তাকে কফিও পরিবেশন করা হবে সোনার কাপেই।

সোনায় মোড়ানো বাথটাব।

এমনই সব চমক নিয়ে সবার জন্য নিজের দরজা উন্মুক্ত করতে যাচ্ছে বিশ্বের প্রথম সোনায় মোড়ানো পাঁচতারকা হোটেল ‘ডলস হ্যানয় গোল্ডেন লেক’।

ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে বিশ্বের সর্বপ্রথম সোনার পাতে নির্মিত হোটেলটি তৈরি করতে খরচ হয়েছে ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। হোটেলের ইন্টিরিয়র এবং এক্সটিরিয়র দুই ক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হয়েছে ২৪ ক্যারেটের সোনা।

হোটেলের ভেতরটা দেখতে যেমন।

২০০৯ সালে এই হোটেলের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ধারণা করা হচ্ছে যে, চলতি বছরের শেষ দিকে পুরোপুরি নির্মিত হয়ে যাবে তাক লাগানো এই হোটেল। ৪০০টি রুম ও ২৫ তলা বিশিষ্ট এ হোটেলটি পরিচালনা করবে আমেরিকান সংস্থা উইনধাম হোটেল গ্রুপ ।

হোটেলটির ভেতরে এবং বাইরে ৫০০০ বর্গমিটারের সিরামিক টাইলস বসানো রয়েছে। এই টাইলসগুলিও সম্পূর্ণ সোনার তৈরী।

সোনায় মোড়ানো টয়লেট সিট।

হোটেলের রুমগুলো সোনায় মোড়ানো, বাথরুম থেকে পুল সবই সোনার প্লেটে তৈরি। এই হোটেলে কাপ থেকে শুরু করে খাবার-দাবারও পরিবেশন করা হবে সোনার পাত্রেই। হোটেলের যাবতীয় আসবাবপত্রও সোনার তৈরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *