সর্বশেষ :

পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে সুন্দরবনের সবক’টি পর্যটনকেন্দ্র

বাগেরহাট প্রতিনিধি :

করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে ১ নভেম্বর (রবিবার) থেকে পর্যটকদের জন্য সুন্দরবনের সব পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে বন অধিদপ্তর একটি গেজেট প্রণয়ন করেছে। গেজেট প্রণয়নের পর গত মঙ্গলবার বন বিভাগের প্রধান কার্যালয় (ঢাকা) থেকে বনের সব পর্যটনকেন্দ্র খুলে দেওয়ার বার্তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বন বিভাগের খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট ও মোংলাসহ সব দপ্তরে।

প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরী গত মঙ্গলবারই এ সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটকদের বনে ভ্রমণ করতে হবে। এ জন্য বন বিভাগের বিভিন্ন কার্যালয়ে নিদের্শনা পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া করোনাকালে একসঙ্গে বেশি লোক নিয়ে ভ্রমণ করা যাবে না। মানতে হবে সামাজিক এবং শারীরিক দূরত্বও। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই পর্যটন ব্যবসায়ীদের বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

গত ১৯ মার্চ করোনাভাইরাসের প্রাদুভার্বের কারণে সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এর পর থেকে বেকার হয়ে পড়ে এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত পর্যটন ব্যবসায়ী, মালিক ও শ্রমিক-কর্মচারীরা। তাঁরা সুন্দরবন পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচিও পালন করে আসছিলেন।

অবশেষে দীর্ঘ প্রায় সাত মাসেরও অধিক সময় পর বন বিভাগ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে আগামী ১ নভেম্বর থেকে সুন্দরবন ভ্রমণের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্তের পাশাপাশি পর্যটনকেন্দ্রগুলোর বিভিন্ন স্থাপনার উন্নয়ন, সংস্কার ও মেরামতের কাজ শুরুর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কারণ, বিগত ঝড়-জলোচ্ছ¡াসে বনের প্রধান আকর্ষণীয় স্থান করমজলসহ বিভিন্ন কেন্দ্রের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের খবরের পর পরই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ট্যুরিজম ব্যবসায়ীরা। বর্তমানে তারা তাদের নৌযানগুলো মেরামতসহ নানা কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে।

এদিকে শর্ত সাপেক্ষে সুন্দরবনের পর্যটনকেন্দ্রগুলো দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করা হলেও শর্ত যথাযথভাবে পালন হচ্ছে কি না তা দেখভালে কঠোর নজরদারি করা হবে বলে জানান প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *