সর্বশেষ :
অবাধ্য পর্যটক ঠেকাতে মাউন্ট ফুজিতে দেয়াল তুললো জাপানপর্যটন সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ – ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামদুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কবলে পড়ে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের এক যাত্রীর মৃত্যুঅবশেষে কক্সবাজার ফিরছেন সেন্টমার্টিনে আটকাপড়া পর্যটকরাবিদেশি পর্যটকদের ক্যাসিনোসহ বিনোদন নিশ্চিতের সুপারিশপর্যটকদের বিস্ময় শমশেরনগরের ক্যামেলিয়া লেকপদ্মাসেতুকে ঘিরে পর্যটন খাতে নেওয়া হয়েছে নানা কর্মসূচিপর্যটন ভবনের ছাদে রুফটপ রেস্টুরেন্ট উদ্বোধন করলেন পর্যটন প্রতিমন্ত্রীসেন্টমার্টিন ভ্রমণে নতুন বিধি-নিষেধ আরোপনতুন বিমান ‘ধ্রুবতারা’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন

সেন্টমার্টিন ভ্রমণে নতুন বিধি-নিষেধ আরোপ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন ভ্রমণে নতুন করে বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে সরকার। পরিবেশ অধিদপ্তর এক গণবিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, অনিয়ন্ত্রিত পর্যটন এবং পর্যটকদের অসচেতনতা, দায়িত্বজ্ঞানহীনতা, পরিবেশ-প্রতিবেশ বিরোধী আচরণের ফলে সেন্টমার্টিনের বিরল প্রতিবেশ এবং জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া ওই গণবিজ্ঞপ্তিতে দ্বীপটিকে ‘প্রতিবেশগত সঙ্কটাপন্ন এলাকা বলেও ঘোষণা করা হয়েছে।

ছেঁড়াদ্বীপ

এমতাবস্থায় সংকটাপন্ন দ্বীপটিকে টিকিয়ে রাখার লক্ষ্যে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) এর ৪ ধারার ক্ষমতাবলে সেন্টমার্টিনে ভ্রমণের উপর ই¤েœাল্লিখিত বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে অধিদপ্তর।

বিধি-নিষেধগুলো হলো-

– দ্বীপের সৈকতে সাইকেল, মোটরসাইকেল, রিকশা, ভ্যানসহ কোনো ধরনের যান্ত্রিক ও অযান্ত্রিক বাহন চালানো যাবে না।

– দ্বীপের সৈকত, সমুদ্র এবং নাফ নদীতে প্ল­াস্টিক বা কোনো ধরনের বর্জ্য ফেলা যাবে না।

– পশ্চিম দিকের সৈকতে কোনাপাড়ার পর দক্ষিণ দিকে এবং পূর্ব দিকের সৈকতে গলাচিপার পর দক্ষিণ দিকে যাওয়া যাবে না।

– দ্বীপের চারপাশে নৌ-ভ্রমণ করা যাবে না।

সেন্টমাটিনের যাত্রাপথ

– জোয়ার-ভাটা এলাকায় পাথরের ওপর দিয়ে হাঁটা যাবে না।

– সামুদ্রিক কাছিমের ডিম পাড়ার স্থানে চলাফেরা, রাতে আলো জ্বালানো এবং ফ্ল্যাশলাইট ব্যবহার করে ছবি তোলা যাবে না।

– সৈকতে রাতের বেলা কোনো ধরনের আলো বা আগুন জ্বালানো, আতশবাজি ও ফানুস ওড়ানো যাবে না।

– সৈকতে মাইক বাজানো, হৈ-চৈ এবং উচ্চস্বরে গান-বাজনা করা কিংবা বার-বি-কিউ পার্টি করা যাবে না।

– ছেঁড়াদিয়া দ্বীপে স্পিডবোট, কান্ট্রি বোট, ট্রলার কিংবা অন্যান্য জলযানে যাতায়াত কিংবা
নোঙর করা যাবে না।

– সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে সরকারের অধিগ্রহণ করা ছেঁড়াদিয়া দ্বীপ ভ্রমণ করা যাবে না।

– প্রবাল, শামুক, ঝিনুক, সামুদ্রিক কাছিম, পাখি, তারা মাছ, রাজকাঁকড়া, সামুদ্রিক ঘাস, সামুদ্রিক শৈবাল এবং কেয়া ফল সংগ্রহ ও ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে না।

– জাহাজ থেকে পাখিকে চিপস বা অন্য কোনো খাবার খাওয়ানো যাবে না এবং

– দ্বীপে সুপেয় পানির পরিমাণ সীমিত হওয়ায় পানির অপচয় রোধ করতে হবে।

দারুচিনি দ্বীপ

এগুলো ছাড়াও সেন্টমার্টিন দ্বীপের প্রতিবেশের জন্য ক্ষতিকর এমন যে কোনো কাজ থেকে ভ্রমণকারীসহ সবাইকে বিরত থাকতে হবে। এ সব বিধি-নিষেধ লঙ্ঘনকে আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ বলে ওই সরকারি গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *